আমেরিকার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে ফোন করেন বাংলাদেশে সামরিক শক্তি বাড়াবে

জাতীয় সংবাদ

শেয়ার করুন

বাংলাদেশের সাথে যখন চিনের সুসম্পর্ক চলছে এবং চীন যখন বাংলাদেশকে প্রায় ১০০০টি পণ্য রপ্তানীর উপর সুল্ক সুবিধা দিয়েছে তাই আমেরিকাও দিতে পারে বলে ধারনা করা হচ্ছে। সেই জন্যেই হঠাত করে বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা সচিব মার্ক টি এস্পার টেলিফোন করেছেন। মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিব এ সময় বলেছেন  যে তিনি রোহিঙ্গা সমস্যার শান্তিপূর্ণ সমাধান খুঁজতে বাংলাদেশকে সহায়তা করবেন।

শুক্রবার প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম গণমাধ্যমকে এসব কথা বলেন। তিনি বলেছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা সচিব ড। মার্ক টি এস্পার শুক্রবার (১১ ই সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে টেলিফোন করেছিলেন। টেলিফোনে বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে আলোচনার পাশাপাশি তিনি প্রধানমন্ত্রীকে বলেছিলেন যে রোহিঙ্গা সমস্যার শান্তিপূর্ণ সমাধান খুঁজতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশকে সহায়তা করবে। প্রধানমন্ত্রী্র প্রেস সচিব আরও বলেন, “মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিব রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের দেখানো উদারতার প্রশংসা করেছেন। এজন্য তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকেও ধন্যবাদ জানান।একই সাথে তিনি যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাস সংক্রমণের শেষ মুহুর্তে সহযোগিতা করার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানান। মার্ক টি। এস্পার।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনাভাইরাসজনিত কারণে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রাণহানির জন্য শোক প্রকাশ করেছেন এবং করোনাভাইরাস মহামারী মোকাবেলায় বাংলাদেশের সহায়তার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রশংসা করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী এবং আমেরিকার প্রতিরক্ষা সচিব আশা করছেন যে দুটি দেশ কভিড-১৯ মহামারী দ্বারা সৃষ্ট জরুরি পরিস্থিতি মোকাবেলায় নিবিড়ভাবে কাজ করবে।

মার্ক টি এস্পার আরও বলেন  সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের সাথে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনে বিশেষ অবদানের জন্য বাংলাদেশের প্রশংসা করেছেন। গত আগস্টে লেবাননের বৈরুতে এক ভয়াবহ বিস্ফোরণে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর একটি জাহাজের প্রাণহানির জন্য তিনি দুঃখ প্রকাশ করেছেন। মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিব আশা প্রকাশ করেছিলেন যে শান্তিরক্ষীদের সাথে শান্তি প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। এক্ষেত্রে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থন অব্যাহত থাকবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আসন্ন মার্কিন নির্বাচন সম্পর্কে কথা বলেছেন এবং আশা করেছিলেন নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে চলবে।আমেরিকার প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, যুক্তরাষ্ট্র বর্তমান বন্যাসহ যে কোনও প্রাকৃতিক দুর্যোগে বাংলাদেশকে সহায়তা করতে প্রস্তুত রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমেরিকা থেকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকারী রাশেদ চৌধুরীকে ফিরিয়ে আনতে মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিবের সহযোগিতা চেয়েছেন। মার্ক টি এস্পারও এ ব্যাপারে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন।এদিকে, মার্কিন দূতাবাসের মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগও মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিব এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মধ্যে টেলিফোন আলাপনের বিষয়ে গণমাধ্যমকে একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়েছে। টেলিফোনে কথোপকথনে তিনি কোভিড -১৯ মহামারী মোকাবেলায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক গৃহীত পদক্ষেপ এবং প্রতিবেশী দেশগুলির কল্যাণে সাম্প্রতিক কার্যক্রমের প্রশংসা করেন মার্ক টি এস্পার।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, দুই নেতা সকল দেশের সার্বভৌমত্ব নিশ্চিত করতে একটি মুক্ত ও উন্মুক্ত ইন্দো-প্যাসিফিকের প্রতি তাদের যৌথ প্রতিশ্রুতি নিয়ে আলোচনা করেছেন। তারা সামুদ্রিক ও আঞ্চলিক সুরক্ষা, বৈশ্বিক শান্তিরক্ষা, এবং বাংলাদেশের সামরিক ক্ষমতা আধুনিকায়নের উদ্যোগসহ সুনির্দিষ্ট দ্বিপক্ষীয় প্রতিরক্ষা অগ্রাধিকার নিয়েও আলোচনা করেছেন।  প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, “উভয় নেতা পারস্পরিক স্বার্থ ও মূল্যবোধের সমর্থনে ঘনিষ্ঠ দ্বিপাক্ষিক প্রতিরক্ষা সম্পর্ক বজায় রাখার প্রতিশ্রুতি পুনরুদ্ধার করেছেন।

সুত্র জানায় বাংলাদেশের অর্থনীতি ও সামরিক শক্তিকে আরো শক্তিশালী করার জন্যেই আমেরিকার প্রতিরক্ষা সচিব বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে টেলিফোন করে বিস্তারিত আলোচনা করেছেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *